ফেসবুকে পরিচয়, পাঁচ বছরের প্রেম, বিয়ের দিনে পালাল ‘জামাই’




নিউজ সময়, | প্রকাশিত: 08:30 PM, January 26, 2018
IMG

বর্তমান যুগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয়, এরপর প্রেমের সম্পর্ক, তারপর শারীরিক সম্পর্ক, প্রেমিকাকে নিয়ে পলায়ন, প্রতারণা, নির্যাতন, গণধর্ষণ ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের ঘটনা প্রতিনিয়তই ঘটছে। এটা কোনো ভাবেই যেন রোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। দিনের পর দিন এমন ঘটনা ঘটেই চলেছে। সম্প্রতি এমনি একটি অবাক করার মতো ঘটনা ঘটেছে, তা হলো-

অন্য আর পাঁচটি বিয়ে বাড়ির মতোই সকাল থেকেই মহা ব্যস্ততা, চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এসেছেন আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত উৎসবের আমেজ আর রইল না। বিয়েই যে হল না। কেন? পাত্র অনুপস্থিত! তাকে বার বার ফোন করেও সন্ধান মিলল না। এ কারণেই মাটি হয়ে গেল সব আয়োজন। এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে ভারতের খড়দহতে।

খড়দার আর্য বসুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল এক তরুণীর। ফেসবুকে তাদের পরিচয় হয়েছিল। এরপর দীর্ঘ ৫ বছরের প্রেমের সম্পর্ক। ধীরে ধীরে তা গড়িয়েছিল বিয়ের দিকে। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত বিয়ে করতে আর আসলেন না আর্য বসু। তিনি প্রেমিকার সঙ্গে প্রতারণা করলেন।

সবার মনে প্রশ্ন, কিন্তু কেন? কি কারণে এতোদিনের প্রেমের সম্পর্ক কোনো পরিণতি পেল না?

জানা গেছে, প্রেমিকাকে নিজের সম্পর্কে মিথ্যা বলেছিলেন আর্য বসু। তিনি বলেছিলেন, সে তথ্যপ্রযুক্তির এক কর্মী। বেতন পান ৩৫ হাজার টাকা। কিন্তু আসল ঘটনা হল, তিনি কোনো চাকরিই করেন না। নিজেকে বাঁচাতে মিথ্যের আশ্রয় নেন তিনি। যা বলেছিলেন তার সবই মিথ্যা কথা।

প্রতারক আর্য কেবল নিজের সম্পর্কে মিথ্যা বলেননি, বেশ কয়েকবার ওই তরুণীর কাছ থেকে মোটা অংকের টাকাও হাতিয়ে নিয়েছিলেন। এমন কি, বিয়ের আগের দিনেও ৩৫ হাজার টাকা নিয়েছিলেন আর্য। তখন কেউ ভাবতেও পারেনি এতো কিছুর পরেও বিয়ের দিনে অনুপস্থিত থাকবেন বর আর্য বসু।

তাই তো বিয়ের আসরে এখন শোকের কালো ছাঁয়া নেমে এসেছে। বন্ধ হয়ে গিয়েছে সানাইয়ের সুর। নতুন জীবনের স্বপ্ন দেখা ওই তরুণীর চোখে এখন সমুদ্রের জল।

ঘৃণা মেশানো কণ্ঠে ওই তরুণীর বলেন, ‘ওর চূড়ান্ত শাস্তি চাই আমি। আমার বাবা বাইপাসের রোগী। বাবা অনেক কষ্ট করে বিয়ের জোগাড় করেছিলেন।’ বলতে বলতে থেমে যান তিনি। এখন স্বপ্নভঙ্গের হতাশায় তার চোখে কেবলই শুধু শূন্যতা বয়ে চলেছে।

এ ঘটনার পরে পাত্রীর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে আপাতত খড়দহ থানার পুলিশ হাজতে আছেন আর্য বসু।

IMG IMG IMG

More From Category