সারাদেশ

নরসিংদীর বেলাবতে এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিন পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

মো: শফিকুল ইসলাম:
নরসিংদীর বেলাব উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসিল্যান্ড মোঃ বেলাল হোসেনের বিরুদ্ধে মিটার খুলে বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করার অভিযোগে সাংবাদ সম্মেলন করেছে তিন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার। গতকাল সকালে উপজেলার বিন্নাবাইদ ইউনিয়নের রাজারামপুর গ্রামের আমিনুল হকের বাড়িতে এই সাংবাদিক সম্মেলন করে পরবিারগুলো।

ভুক্তভোগী তিন পরিবারের সদস্যরা বলেন, নতুন রাস্তা নির্মাণের জন্য আমরা জমি না দেওয়ায় গত ৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরে এসিল্যান্ড বেলাল হোসেন উপস্থিত থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন ও মিটার খুলে নিয়ে যায়। এ সময় আমিনুল হকের সকল সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল ও বাড়ি থেকে উচ্ছেদের হুমকি দেন। আমাদের কোনো ক্ষতিপূরণ না দিয়ে আমাদের নামজারি বাতিল করে নতুন রাস্তা নির্মাণ করবে বলে হুমকি প্রদান করনে। এমনকি আমাদেরকে গাড়ির চাকার সাথে বেঁধে নিয়ে যাবে বলে হুমকি দেন।বর্তমানে তিনটি পরিবারের সদস্যবৃন্দ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। বিদ্যুৎ না থাকায় তাদের ছেলেমেয়েরা ঠিকমত লেখাপড়া করতে পারছে না বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা। ক্ষতিগ্রস্ত আমিনুল হক বলেন, আমার প্রতিবেশি আব্বাস মিয়া তার সুবিধার্তে এসিল্যান্ড স্যারকে নিয়ে আমার বাড়িঘর ভাঙচুর করে রাস্তা নির্মাণ করতে চায়।

আমি চাই তারা সরকারি হালটের উপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করুক। আমার নিজের জমির উপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করতে দিবনা। এ কারণে এসিল্যান্ড স্যার আমার বাড়িতে এসে বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করে মিটার খুলে নেয়। চলে যাবার সময় রাস্তার জন্য জায়গা না দিলে বাড়িঘর ভাংচুর, খারিজ বাতিল ও গাড়ির সাথে বেঁধে নিয়ে যাবে বলে হুমকি দেন তিনি। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের আরেক সদস্য মোঃ বাবুল মিয়া বলেন, বিদ্যুৎ এর সকল বিল পরিশোধ থাকার পরও কেন বেলাব উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বেলাল হোসেন আমাদের বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করেছে তা আমরা জানিনা। এর আগে রাস্তার জন্য জমি দেওয়াকে কেন্দ্র করে আমাদের প্রতিবেশি আব্বাস মিয়া, রুহুল কবির, ইলিয়াস আমার মাদ্রাসা পড়ুয়া ৮ বছরের ছেলে হানজালাকে ধরে নিয়ে মারধর করে ঘাড় ভেঙ্গে দেয়। বর্তমানে আব্বাস রাস্তার জন্য জমি না দেওয়ায় আমাদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে।

এই আব্বাসই এসিল্যান্ড স্যারকে ভুল বুঝিয়ে আমাদের বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করেছে বলে আমার ধারণা। আরেক সদস্য নাসির উদ্দীনের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে তানিয়া আক্তার বলেন, আমাদের কোনো বিদ্যুৎ বিল বাকী নেই। তারপরও কেন এসিল্যান্ড স্যার সংযোগ বিছিন্ন করেছে তা বুঝতে পারছিনা। কিন্তু বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করায় আমাদের লেখাপড়ার ক্ষতি হচ্ছে। অভিযুক্ত আব্বাস মিয়া বলেন, এই তিন পরিবার এলাকার কাউকে মানেনা। তারা গ্রাম্য সালিশও মানেনা। এসিল্যান্ড স্যার তাদেরকে রাস্তা দেয়ার জন্য জায়গা দিতে বারবার বললেও তারা কোনো কর্ণপাত করেনি। তারা মামলাবাজ। আমার বিরুদ্ধে তারা ৭ টি মিথ্যা মামলা করে আমাকে হয়রানি করেছে।

যে জায়গা দিয়ে আমরা রাস্তা নির্মাণ করতে চাচ্ছি এটা সরকারি জায়গা অথচ তারা এই জায়গাটি দখল করে বাড়ি নির্মাণ করেছে। নরসিংদী পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২ এর ডিজিএম মোঃ খোরশেদ আলম বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করার কথা স্বীকার করে বলেন, অবৈধ বাড়িঘর উচ্ছেদ করার জন্য এসিল্যান্ডের নির্দেশে বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। বেলাব উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ বেলাল হোসেন বলেন, আমি প্রথম দিকে তাদেরকে রাস্তার জায়গা দিতে বলছিলাম। এমনকি যতটুকু জমি রাস্তায় দিবে ততটুকু জমি তার পাশের জমির মালিক তাদরেকে দিয়ে দিবেন। এরপরও তারা এখানে রাস্তা নিয়ে ঝামেলা সৃষ্টি করছেন। যেহেতু এটা পুরানো রাস্তা তাই এ এলাকার জনগনের দাবি রাস্তা এখান দিয়েই হতে হবে। তাছাড়া প্রতিদিন রাজারামপুর গ্রামে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরাও আমার অফিসে এসে রাস্তার করার দাবি জানান। বিদ্যুৎ সংযোগ নিতে জমির পর্চা লাগে, তারা পর্চা দেখাতে পারেনি। তাই বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করা হয়েছে। তবে ছাত্রছাত্রীদের দিকটা বিবেচনা করে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে দেবার ব্যবস্থা করা হবে জানান তিনি।