- সারাদেশ

নরসিংদীতে ৩০ গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামী দুই সহোদর গেস্খপ্তার

মো.শফিকুল ইসলাম(মতি)নরসিংদী:নরসিংদীতে ৩০ টি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ১৮ সাজা পরোয়ানাসহ দুই সহোদরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকাল ৪ টায় নরসিংদী পুলিশ সুপারের কায্যার্লয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইনামুল হক সাগর। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, নরসিংদীর পূর্ব ব্রাহ্মণদী এলাকার মাহমুদুল হাসান মাদানীর ছেলে মানসুর (৩২) ও মাসুদ বিন মাসুদ (৩৭)।সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মাসুদ ও মানসুর দুই সহোদর দীর্ঘদিন যাবৎ ভূমি ব্যবসা ও ইমারত নির্মানের আড়ালে মানুষের সাথে প্রতারণা ও অর্থ আতœসাৎ এ লিপ্ত ছিলো।

তাদের বিরুদ্ধে ২০১১ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত নরসিংদী মডেল থানায় বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড ও অর্থদন্ড সম্বলিত ১৮টি সাজা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এবং ১২টি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মূলতবী ছিলো।দীর্ঘদিন যাবৎ নরসিংদী মডেল থানার পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্ঠা চালিয়ে আসছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় পুলিশ জানতে পারে তারা ঢাকায় আত্মগোপনে রয়েছে। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দিনগত রাত ২.৩০ ঘটিকায় ঢাকার পল্লবী থানা এলাকা হতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।সংবাদ সম্মলনে আরো জানানো হয়, গ্রেপ্তারকৃত মানসুরের নামে ১০টি সাজা পরোয়ানায় মোট ৯ বছর ০৬ মাস কারাদন্ড ও এক কোটি তিন লক্ষ টাকা অর্থ দন্ড রয়েছে।ৎ

আর মাসুদের নামে ৮টি সাজা পরোয়ানায় মোট ৬ বছর কারাদন্ড এবং এক কোটি দশ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড রয়েছে। এছাড়া মানসুরের নামে ৯টি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এবং মাসুদের নামে ৩টি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইনামুল হক সাগর বলেন, জেলা পুলিশ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা, বিট পুলিশিং, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও দমনসহ মানবিক পুলিশিং এর মাধ্যমে জেলাবাসীকে কাঙ্খিত সেবা প্রদান করছে। এরই ধারাবাহিকতায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এখানে কমেন্ট করুন: