- সারাদেশ

আশুলিয়ায় স্বর্ণ লুট করা ৯ ডাকাত নরসিংদীতে গ্রেফতার

মো.শফিকুল ইসলাম(মতি)নিউজ সময়:নরসিংদীতে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির প্রস্তুতির সময় নয় ডাকাতকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ।শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১টার সময় নরসিংদীর দত্তপাড়া পুরাতন লঞ্চঘাটের বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে প্রাইভেটকার, বিদেশি পিস্তল গুলিসহ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।গ্রেফতারকৃতরা নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার গোপালদী বাজারে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি এবং ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার নয়ারহাট বাজারের স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির সঙ্গে জড়িত।

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইনামুল হক সাগর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।গ্রেফতাররা হলেন- শরীয়তপুর জেলার জাজিরা থানার কুন্ডেরচর এলাকার মোহাম্মদ দেওয়ানের ছেলে আনোয়ার হোসেন দেওয়ান (৪০), একই থানার দাইমুদ্দিন খলিফার কান্দি এলাকার মৃত সিরাজ খলিফার ছেলে দেলোয়ার হোসেন খলিফা (৩৬), মাদারীপুর জেলার সদর থানার বলাইচর এলাকার মোতালেব খাঁর ছেলে কামাল খাঁ (৩৯), একই এলাকার মৃত মান্নান হাওলাদারের ছেলে খবির হাওলাদার (৪০), কালকিনী থানার নতুনচর দৌলতখান এলাকার নূরুল ইসলাম হাওলাদারের ছেলে খালেক হাওলাদার (৩৭), বরিশাল জেলার বানানীপাড়া থানার ব্রাহ্মণকাঠী এলাকার মৃত হারুন গাজীর ছেলে আল মিরাজ (৩৮), টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর থানার বন্দকাউলজানি এলাকার মৃত আবদুল মালেকের ছেলে আব্দুর রহিম মিয়া (৩১), নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার লক্ষ্মীপুর এলাকার মৃত আব্দুর করিমের ছেলে কবির হোসেন (৩৮) ও একই থানার ঝাইকান্দি এলাকার সামসু মিয়ার ছেলে রহিম মিয়া (৩৯)।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শুক্রবার মধ্যরাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযানকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশ জানতে পারে দত্তপাড়া পুরাতন লঞ্চঘাটের বেড়িবাঁধ এলাকায় একদল ডাকাত, ডাকাতির উদ্দেশে প্রাইভেটকারে করে সমবেত হয়ে অবস্থান করছে। পরে ঘটনাস্থলে গোয়েন্দা পুলিশ পৌঁছালে ডাকাত দল টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে ফাঁকা গুলিবর্ষণ করলে গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যরাও পাল্টা চার রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। এসময়ে ডাকাতদল পালানোর চেষ্টা করলে নয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। বাকি ১৪ থেকে ১৫ জন ডাকাত সি-বোট নিয়ে গুলি করতে করতে পালিয়ে যায়।গোয়েন্দা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা জানায়, পলাতক ডাকাতসহ তারা পরস্পর যোগসাজশে সি-বোড, প্রাইভেটকার, বিদেশি পিস্তল, গুলি ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে নরসিংদীতে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি করার জন্য সমবেত হয়ে শলা পরামর্শ করছিল। তারা পেশাদার আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য।

তারা ও পলাতক ডাকাতরা গত ৩১ আগস্ট মঙ্গলবার দিবাগত রাতে নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার গোপালদী বাজারে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি করে। এছাড়া গত ০৫ সেপ্টেম্বর রোববার দিবাগত রাতে আশুলিয়া থানার নয়ারহাট বাজারে স্বর্ণের দোকানের ডাকাতির সঙ্গেও তারা জড়িত। ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত স্বর্ণ ও রূপা তাদের সহযোগী ডাকাত আব্দুর রহিম মিয়ার মাধ্যমে বিক্রয় করে টাকা সব ডাকাতদের মধ্যে ভাগ-বাটোয়ারা করে দেওয়া হয়। তারা ডাকাতির স্বর্ণ ও রূপা ঢাকার তাঁতীবাজারের নিউ খাজা স্বর্ণের দোকানে বিক্রয় করে। পরে ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার কদমতলী এলাকার স্বর্ণ সুন্দরী শিল্পালয়ের পেছনের কক্ষে আব্দুর রহিম এর থাকার রুম থেকে একটি সাদা প্লাস্টিকের ব্যাগ থেকে নগদ ২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইনামুল হক সাগর বলেন, গ্রেফতারকৃতরা পেশাদার ডাকাতদলের সক্রিয় সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় একাধিক মামলা রয়েছে। আর এ ঘটনায় নরসিংদী মডেল থানায় ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এখানে কমেন্ট করুন: