- সারাদেশ

নরসিংদীর রায়পুরা হাসনাবাদ মহল্লায় জমি নিয়ে জালে জালে বিরোধ- খোজ নেই ব্যাবসায়ী বাদলের

মো.শফিকুল ইসলাম(মতি)নরসিংদী : নরসিংদীর রায়পুরা হাসনাবাদ মহল্লায় জাল নাছরিন আক্তারের সাথে জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে গত ২৫ মার্চ বিকালে নিজ বাড়ীতে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে নিপা আক্তারকে। এই ঘটনা নিয়ে বিরোধ চলছিল জালের সাথে জালের গত ৩০ মার্চ সকালে বাড়ী থেকে ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান হাসনাবাদ বাজারে যান নিপার স্বামী বাদল মিয়া, এর পর থেকেই সন্ধান নেই ব্যাবসায়ী বাদল মিয়ার, এ বিষয়ে রায়পুরা থানায় জিডি করলেও তিন দিনে কোন সন্ধান নেই তার।

জখমের ঘটনায় জাল ও তার আতœীয় বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিলে নিপার স্বামী ব্যাসায়ী বাদল মিয়া নিখোঁজ হয়। ব্যাবসায়ী বাদল মিয়া নিখোঁজ হওয়ায় স্ত্রী নিপা আক্তার ও পরিবারের লোকজন আতঙ্কের মধ্যে দিনযাপন করছেন। এই ব্যাপারে জিডি থাকলে ও জাল সহ অন্যান্য সহ যোগিরা গ্রেফতার না হওয়ায় গ্রেফতারের দাবী জানান নিপা আক্তার ও স্বজনেরা। এই ব্যাপারে বিবাদী এমদাদুল হক,নাইম,মাসুমা,সাফিয়া মামলা তুলে নেওয়ার জন্য নিপা আক্তার ও তার পরিবারের লোকজনকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।

নিখোঁজ বাদল মিয়ার স্ত্রী নিপা আক্তার আরো জানান, জমিজমা নিয়ে বিরোধ ছিল আপন জাল নাছরিন আক্তারের সাথে পরে তার আতœীয় স্বজনকে সাথে নিয়ে বিভিন্ন অস্ত্র সাস্ত্রে সজিত হয়ে রায়পুরা উপজেলার হাসনাবাদ গ্রামের মো.ফরিদ(মাইন উদ্দিন)এর স্ত্রী নাছরিন আক্তার(৩৩)শিবপুর উপজেলার ঘাগটিয়া গ্রামের মৃত ছামাদের পুত্র এমদাদুল হক(৫৫)এমদাদুল হকের পুত্র নাইম(২২)নরসিংদী সদর উপজেলার গাবতলী মহল্লার আ.কালামের স্ত্রী সাফিয়া(৩৫) গত ২৫ মার্চ বিকালে নিপার বাড়ীতে ঢুকে এলোপাথারী কুপিয়ে গুরুতর জখম করে তাকে।

এই ব্যাপারে নিপা বাদী হয়ে বিবাদীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিলে গত ৩০ মার্চ সকালে নিপার স্বামী হাসনাবাদ বাজারের ব্যাবসায়ী বাদল মিয়া বাজার থেকে নিখোঁজ হয়। এর পরথেকে তার মোবাইল বন্ধ সম্ভাব্য সকল স্থানে খোজে না পেয়ে নিপা আক্তার রায়পুরা থানায় গত ৩১ মার্চ স্বামী নিখোজ বিষয়ে একটি জিডি দায়ের করেন যাহার নং ১৬০৫। কিন্তু তিনদিন অতিবাহিত হলেও এখনো স্বামী বাদল মিয়ার কোন সন্ধান পাননি স্ত্রী নিপা আক্তার ও স্বজনেরা, তাদের ধারনা জাল ও তাদের আতœীয় স্বজনরা অপহরন করেছে বাদল মিয়াকে তারা হত্যাকরে লাশ গোম করে ফেলেছে।

এ বিষয়ে বাড়াবাড়ী না করার জন্য বিবাদীরা বিভিন্ন প্রকার একের পর এক হুমকি দিচ্ছে। এ বিষয়ে আমির গঞ্জন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন দীর্ঘদিন যাবৎ হাসনাবাদ বাজারে কনফেকশনারী মিষ্টি ব্যাবসায়ী বাদল মিয়া ব্যাবসা করে আসছে সে অত্যান্ত ভাল লোক ছিল আজ তিনদিন দোকান বন্ধ শুনেছি তার স্ত্রী নিঁেখাজ বিষয়ে একটি জিডি করেছে সে এখোনো নিখোঁজ তার মোবাইলটি বন্ধ তার দুটি সন্তান আছে আমি প্রশাসনকে বলেছি যে কোন বিনিময়ে তাকে খোজে বের করার জন্য। এ বিষয়ে প্রশাসনের কেউ কথা বলতে রাজি হয়নি। এই ব্যাপারে উদ্ধর্তন কতৃপক্ষের নজর দেওয়া প্রয়োজন।

এখানে কমেন্ট করুন: